Tista Express Logo
ঢাকাসোমবার , ২৩ আগস্ট ২০২১
  1. Active
  2. অন্যান্য
  3. অপরাধ
  4. অর্থনীতি
  5. আইন-আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আবহাওয়া
  8. করোনাভাইরাস
  9. কৃষি ও প্রকৃতি
  10. ক্যাম্পাস
  11. খেলাধুলা
  12. গণমাধ্যম
  13. জবস
  14. জাতীয়
  15. জেলা/উপজেলা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

গাইবান্ধায় ফেরি সার্ভিস চালুর নামে ১৪৫ কোটি টাকা লোপাট, নাগরিক মঞ্চের বিক্ষোভ

তিস্তা এক্সপ্রেস
আগস্ট ২৩, ২০২১ ৬:৩৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

গাইবান্ধার ঐতিহ্যবাহী বালাসীঘাট থেকে জামালপুরের বাহাদুরাবাদ ঘাট পর্যন্ত ফেরি সার্ভিস চালুর নামে ১৪৫ কোটি টাকা রাষ্ট্রীয় অর্থ অপচয় ও লুটপাটের সাথে জড়িতদের বিচার ও ব্রক্ষপুত্র সেতু বাস্তবায়নের দাবিতে গাইবান্ধা নাগরিক মঞ্চের আয়োজনে এক বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (২২ আগস্ট) দুপুরে শহরের ডিবি রোডের আসাদুজ্জামান স্কুল এন্ড কলেজের সামনে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

গাইবান্ধা নাগরিক মঞ্চের এই সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘অবহেলিত গাইবান্ধাবাসীর ভাগ্য উন্নয়নে বারবার বাঁধা দিচ্ছে কোন এক অদৃশ্য শক্তি। আমরা সেই কালো শক্তিকে প্রতিহত করে লুটপাটকৃত ১৪৫ কোটি টাকার রাষ্ট্রিয় অর্থ অপচয়রোধসহ সেতু বাস্তবায়ন করে গাইবান্ধা বাসীর ভাগ্য উন্নয়নের জোর দাবি করছি’। দাবি বাস্তবায়ন করা না হলে আরো বৃহৎ আন্দোলনের ঘোষনা দেওয়া হবে বলেও জানান তারা।

এ সময় বক্তব্য রাখেন গাইবান্ধা নাগরিক মঞ্চের সদস্য সচিব এ্যাড. সিরাজুল ইসলাম বাবু, ফুলছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান জি এম সেলিম পারভেজ, কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য মিহির ঘোষ, মঞ্জুরুল ইসলাম মিঠু, ওয়াজিউর রহমান রাফেল সহ আরো অনেকে। মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচিতে বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য ‘বালাসী ও বাহাদুরাবাদে ফেরিঘাটসহ আনুষঙ্গিক স্থাপনাদি নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় এ ফেরি রুট তৈরির পরিকল্পনা করা হয় ২০১৭ সালে। প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্দেশ্য প্রসঙ্গে ডিপিপিতে বলা হয়, এ রুটে ফেরি চালু হলে বঙ্গবন্ধু সেতুর ওপর সৃষ্ট অতিরিক্ত চাপ কমবে এবং পণ্য ও যাত্রী পরিবহণে স্থানভেদে ১০০ থেকে ১৭০ কিলোমিটার কমে যাবে। সে মোতাবেক ২০১৭ সালের অক্টোবরে এ প্রকল্প একনেক সভায় অনুমোদন পায়। ওই সময়ে প্রকল্প ব্যয় ধরা হয় ১২৪ কোটি ৭৭ লাখ টাকা। ২০১৭ সালের জুলাই থেকে ২০১৯ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রকল্পের মেয়াদ ধরা হয়। পরবর্তী সময়ে প্রকল্প দুবার সংশোধন করে ব্যয় বাড়িয়ে ১৪৫ কোটি ২ লাখ টাকা এবং প্রকল্পের মেয়াদ বাড়িয়ে ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত করা হয়। প্রকল্পের আওতায় জমি অধিগ্রহণ, পার্কিং ইয়ার্ড, ফেরিঘাট, ইন্টারনাল রোড ও বিভিন্ন অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়। ড্রেজিং করা হয় ফেরি রুটের।

গত জুনে ১৪৫ কোটি টাকার এ প্রকল্প শেষ হয়। এমন সময়ে বালাসী-বাহাদুরাবাদ রুটটি ফেরি চলাচলের উপযোগী নয় বলে প্রতিবেদন দেয় বিআইডব্লিউটিএ গঠিত একটি কারিগরি কমিটি। এছাড়া দুই দফায় ট্রায়াল রান করতে গিয়ে নাব্য সংকটে দুবারই আটকে যায় বিআইডব্লিউটিসির খালি ফেরি। এ কারণে বারবার উদ্যোগ নিয়েও এ রুটে ফেরি চলাচল সম্ভব নয় বলে জানায় নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।